Thu. Oct 28th, 2021

রহস্যময় কোয়ান্টাম মেকানিক্স

রহস্যময় কোয়ান্টাম মেকানিক্স

রহস্যময় কোয়ান্টাম মেকানিক্স

কোয়ান্টাম মেকানিক্স খুবই রহস্যময় বিষয়। রহস্যময় হলেও ফিকশনের মতো কাল্পনিক নয়, সেটা প্রকৃতির গোপন রহস্য। আমি, আপনি ইলেকট্রন থেকে তৈরি কিন্তু ইলেকট্রন খুবই অদ্ভুত আচরণ করে বরং আমি আপনি ইলেকট্রনের মতো অদ্ভুত আচরণ করি না। প্লাঙ্কের ধ্রুবক খুবই ছোটো তাই পরমাণুর অদ্ভুত আচরণ আমাদের জীবনে প্রভাব ফেলে না, কিন্তু যদি প্লাঙ্কের ধ্রুবকের মান বেশি হতো তাহলে আপনি একইসাথে ভিন্ন ভিন্ন অবস্থানে অবস্থান করতেন। তাহলে ভাবুন কোয়ান্টাম মেকানিক্স কতটা ভয়ানক হতে পারে। কোয়ান্টাম মেকানিক্সে ভয়ানক বার্তা নিয়ে আসে হাইজেনবার্গের অনিশ্চয়তা নীতি ও শ্রোডিঙ্গারের সমীকরণ। অনিশ্চয়তা নীতি অনুযায়ী “কণার ভরবেগ ও অবস্থান নির্ণয় করা অসম্ভব।” কী ভয়ানক কথা ভাবুন তো। আপনি ঘরে দরজা লাগিয়ে বসে পড়ছেন অর্থাৎ আপনি জীবিত আছেন। কিন্তু শ্রোডিঙ্গারের বিড়ালের গল্প জানলে আপনি বুঝতে পারবেন আপনি ঘরে যে শুধু বই পড়ছেন এমনটা কিছু নয়, হতে পারে আপনি একসাথে একাধিক কাজ করছেন এবং আপনি মৃত ও জীবিত। কোয়ান্টাম মেকানিক্স “হতে পারে” শব্দটা বেশি পছন্দ করে। যেমন আপনি এই মুহূর্তে আমার বই পড়ছেন অর্থাৎ আপনি বেঁচে আছেন এটা চিরন্তন সত্য, কিন্তু কোয়ান্টাম মেকানিক্স অনুযায়ী ‘না, হতে পারেন আপনি জীবিত আছেন অথবা হতে পারেন আপনি মৃত।’

নিতে চাইলে অর্ডার করুন