কোয়ান্টাম কণা আলোর থেকে দ্রুত প্রভাব ফেলে !! - YMC
Thu. Jul 7th, 2022
YMC

দ্বিচির পরীক্ষাতে ,অবজার্ভ করার আগে ইলেকট্রন একই সাথে দুইটা ছিদ্র দিয়ে যায় ।  যখনি আপনি অবজার্ভ করবেন তখন ইলেকট্রন যেকোনো একটি ছিদ্র দিয়ে প্রবেশ করবে । কিন্তু অবজার্ভ করার আগে ইলেকট্রন একইসাথে দুইটা ছিদ্র দিয়ে যাবে । এখন প্রশ্ন হলো অবজার্ভ করার পর ইলেকট্রন কেন একটি রাস্তা বেছে নিলো ? 

শ্রোডিঙ্গারের বিড়াল পরীক্ষা হতে দেখা যায়  অবজার্ভ করার আগে বিড়াল মৃত ও জীবিত ছিলো । কিন্তু অবজার্ভ করার পর যে কোনো একটি স্টেট , জীবিত অথবা মৃত হয় ।  

কেন একটি স্টেট বেছে নিলো? এর উত্তর বলতে গেলে  প্যারালাল মহাবিশ্বে অন্য ঘটনাটি ঘটে । দ্বিচির পরীক্ষায় আপনার ইলেকট্রনের A ছিদ্র দিয়ে গেলে তখন সাথে সাথে প্যারালাল মহাবিশ্বে অথবা অসীম আয়তনের সীমানা মহাবিশ্ব হলে অন্য পৃথিবীতে আপনার টুইন অবস্থান করে , আপনার টুইনের অর্থাৎ অন্য পৃথিবীতে আপনার   ইলেকট্রন B ছিদ্র দিয়ে যাবে । আপনার ইলেকট্রন এবং আপনার টুইনের ইলেকট্রন আলোর থেকে দ্রুত যোগাযোগ করে জেনে যাবে কে কোন ছিদ্র দিয়ে যাবে ! ইলেকট্রন এবং ইলেকট্রন সিদ্ধান্ত নিয়ে যেকোনো একটা ছিদ্র বেছে নিবে  । কণা  -কণা আলোর থেকে দ্রুত যোগাযোগ করতে পারে ? কোয়ান্টাম মেকানিক্স অনুযায়ী কণা – কণা আলোর থেকে দ্রুত যোগাযোগ করতে পারে । যা কোয়ান্টাম ভালোবাসা , কোয়ান্টাম  এনটেঙ্গলমেন্ট নামে পরিচিত । 

শ্রোডিঙ্গারের বিড়াল  পরীক্ষা হতে দেখা যায় , যখনি আপনি বাক্স খুলবেন তখন বিড়াল মৃত অথবা জীবিত দেখবেন  । আপনার বিড়াল এবং দূরে থাকা আপনার টুইনের বিড়াল আলোর থেকে দ্রুত বেগে যোগাযোগ করে সিদ্ধান্ত নিবে কে জীবিত হবে এবং মৃত্যু হবে !! আপনি যখন দেখবেন বিড়াল মৃত তখন আপনার টুইন অর্থাৎ আপনি অন্য কোনো মহাবিশ্বে দেখবেন বিড়াল জীবিত । কণার আচরণের প্রভাবে প্যারালাল মহাবিশ্ব , সুপার ডিটারমিনিজম সম্পর্ক পড়ুন।

অবজার্ভ করার আগে একটা বস্তু বিভিন্ন স্টেটে থাকতে পারে । যখন অবজার্ভ করবেন তখন একটি স্টেটে দেখবেন । অন্য স্টেট গুলো আপনার টুইন অর্থাৎ প্যারালাল পৃথিবীতে আপনি সেগুলো দেখবেন । কে কোন স্টেটে দেখবেন এটা বস্তু আলোর থেকে দ্রুতবেগে যোগাযোগ করে ঠিক করে নিবে । 

আপনার প্রেমিকা এই মুহর্তে অনেক কাজ করা পারে, যখনি আপনি অবজার্ভ করবেন তখন দেখবেন যেকোনো একটি কাজ করছে ।  প্রশ্ন হলো, কিছুক্ষন আগেই তো অনেক কাজ করছে এখন একটি কি করে? বাকি কাজ গুলো অন্য মহাবিশ্বে আপনার প্রেমিকার টুইন করবে। আপনার প্রেমিকা আর প্রেমিকার টুইন দুইজন কি আলোর থেকে দ্রুত যোগাযোগ করেছে ?

সোডিঞ্জারের বিড়াল পরীক্ষায় বিড়ালের পরিবর্তে আপনাকে বদ্ধ ঘরে রাখা হলে কি হতো ? 

বাইরে কেউ অবজার্ভ করবে তখন আপনার তরঙ্গ ফাংশন collapse করবে । আপনি কি কারো সাথে যোগাযোগ করে সিদ্ধান্ত নিবেন আপনি বেঁচে থাকার স্টেট দেখাবেন কিনা ? আপনাকে নিজের বাচা বা  মরা নিজেই ঠিক করবেন ? 

যদি না করেন তাহলে কেন আপনাকে অবজার্ভ করার পর আপনার তরঙ্গ ফাংশন collapse করে একটি স্টেটে আসলো ? অন্য স্টেট আসলে কি হতো ? 

আপনি বদ্ধ ঘরে আবদ্ধ রয়েছেন । বাক্সের ভেতর তেজস্ক্রিয় পদার্থ রয়েছে । বাইরের কোনো দর্শক অবজার্ভ করার আগ পর্যন্ত জানতে পারবেনা তেজস্ক্রিয় পদার্থ ঘটেছে বা ঘটেনি । সুতরাং বাইরের কোনো দর্শক জানতে পারবে না বদ্ধ ঘরে আপনি বেঁচে আছেন নাকি মরে গেছেন । কোনো দর্শক অবজার্ভ করলে আপনার তরঙ্গ ফাংশন কলাপ্স করবে ।

 যদি আপনি এই পৃথিবীতে জীবিত থাকেন তাহলে অন্য কোনো মহাবিশ্বে আপনি মৃত । পৃথিবীতে আপনি জীবিত এবং অন্য কোনো মহাবিশ্বে মৃত , এখন আপনি ও আপনার টুইন আলোর থেকে দ্রুত যোগাযোগ করে ঠিক করবেন মৃত হবেন নাকি জীবিত । 

বাহিরে দর্শকের অবজার্ভের ভূমিকা ‌ কি , যার ফলে আপনার তরঙ্গ ফাংশন কলাপ্স করবে ? ইলেকট্রন কি নিজে জানে , এই মহাবিশ্বে দ্বিচির পরীক্ষায়  A ছিদ্র দিয়ে প্রবেশ করলে অন্য কোন মহাবিশ্বে ইলেকট্রন B ছিদ্র দিয়ে যাবে ? হতে পারে আমরাও ইলেকট্রনের মতো একই সাথে অনেক জায়গায় অবস্থান করি । যখনি বাহিরে থেকে কেউ অবজার্ভ করে তখন যেকোনো একটি স্টেট চলে আসে । বাইরে থেকে কত দূরে ? হতে পারে এই মহাবিশ্ব থেকে অনেক দূরে কেউ আমাদেরকে অবজার্ভ করছে । তাহলে জিনিসটাকে কেমন দাঁড়ায় ! কেউ আমাকে বহুদূর থেকে দেখার আগ পর্যন্ত আমি পৃথিবীতে ১ , পৃথিবীতে ২ , পৃথিবীতে ৩, পৃথিবীতে ৪…… পৃথিবীতে n অবস্থানে আছি । যখনি বহুদূর থেকে কেউ আমাকে দেখার চেষ্টা করবে তখন আমার তরঙ্গ ফাংশন  collapse করে যেকোনো একটি স্টেট অর্থাৎ যেকোনো একটি পৃথিবীতে দেখবে । দেখার আগ পর্যন্ত সে জানবে না আমি কোথায় আছি ! ইলেকট্রন যেমনভাবে জানেনা অন্য কোন মহাবিশ্বে সে কি আলোর থেকে দ্রুত যোগাযোগ করে সিদ্ধান্ত নিবে ঠিক আমরাও জানি না কেউ আমাদেরকে দেখার চেষ্টা করলে অন্য কোনো মহাবিশ্বে কারো সাথে যোগাযোগ করি !

Leave a Reply

Your email address will not be published.